১৭ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার,রাত ৩:২৪

আইনজীবী হত্যায় ‘অভিযুক্ত’ ইমরান খান

প্রকাশিত: জুন ৮, ২০২৩

  • শেয়ার করুন

পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) দলের চেয়ারম্যান ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে আইনজীবী হত্যার মামলায় অভিযুক্ত করা হয়েছে। আবদুল রাজ্জাক শার নামের ওই আইনজীবী গত মে মাসে ইমরান খানের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতা ও ষড়যন্ত্র মামলা করেছিলেন। মঙ্গলবার (৬ জুন) বেলুচিস্তানের হাইকোর্টে যাওয়ার পথে গুলিবিদ্ধ হন ওই আইনজীবী। পুলিশ জানিয়েছে, আইনজীবী আবদুল রাজ্জাক শার গাড়ি লক্ষ্য করে অন্তত ১০ রাউন্ড গুলি ছোড়ে দুর্বৃত্তরা। ঘটনাস্থলেই নিহত হন তিনি।

পরদিন বুধবার এ ঘটনায় মামলা করা হয়। আইনজীবীর ছেলে সিরাজ আহমেদ এই হত্যা মামলাটি করেন। এ জন্য তিনি ইমরান খান ও তার দল পিটিআইকে দায়ী করেন। তিনি আরও বলেন তার বাবা ইমরানের বিরুদ্ধে মামলা করার জেরে কয়েকবার হত্যার হুমকি পান।
গত মাসে বেলুচিস্তানের হাইকোর্টে ইমরান খানের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র মামলা করেন আইনজীবী শার। সংবিধানের ৬ ধারায় এই মামলাটিতে উল্লেখ করা হয়েছে, গত বছর এপ্রিলে ষড়যন্ত্রের আশ্রয় নিয়ে জাতীয় পরিষদ ভেঙ্গে দেয়ার ষড়যন্ত্র করেন ইমরান খান। পার্লামেন্টে তার বিরুদ্ধে আনা অনাস্থা ভোট যাতে আয়োজন করা না যায় সে জন্যই তিনি এমন ষড়যন্ত্র করেছেন বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়।
চলতি বছর মার্চে ইমরান খানের বিরুদ্ধে আরও তিনটি মামলা হয়।
সন্ত্রাসবাদসংক্রান্ত পৃথক মামলা তিনটি করেছে ইসলামাবাদ পুলিশ। এসব মামলায় ইমরান খানের ঘনিষ্ঠ সহযোগী ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কোরেশিসহ পিটিআই দলের বেশ কিছু কর্মী-সমর্থককে আসামি করা হয়েছে।

ইমরান খানের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা রয়েছে। দলীয় প্রধানকে গ্রেপ্তার না করার দাবিতে পিটিআইয়ের নেতা-কর্মীরা বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন। এমনকি তারা পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষেও জড়িয়েছেন। এর মধ্যে ইমরান খানের বিরুদ্ধে আরও মামলা হলো।

তোশাখানা মামলায় ইমরান খানের বিরুদ্ধে জারি থাকা গ্রেপ্তারি পরোয়ানা বাতিলের আবেদন গতকাল বৃহস্পতিবার নাকচ করেন ইসলামাবাদের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা আদালতের বিচারক।

গত বছর অনাস্থা ভোটে ক্ষমতাচ্যুত হন ইমরান খান। এরপর তার বিরুদ্ধে কয়েক ডজন মামলা হয়েছে।

  • শেয়ার করুন