১৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার,রাত ৯:১৭

টাকার মেশিন পাহারা দিতেই  ঈদ হয় ম্লান

প্রকাশিত: এপ্রিল ১২, ২০২৪

  • শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক. ঈদ মানেই আনন্দ। রোজা শেষে মুসলমানদের  অন্যতম উৎসব  ঈদুল ফিতরের দিন।  বছর ঘুরে দিনটির অপেক্ষা থাকে স্বজন, পরিবার ও প্রতিবেশি । তাই ছুটির আমেজ কাটাতে ঈদ উদযাপন করতে শহর ছেড়ে গ্রামে পরিবেশে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নেন পরিবার-পরিজন।এমন আনন্দের দিনেও পরিবার ছেড়ে বাইরে থাকতে হয় ব্যাংকের এটিম বুথের নিরাপত্তায় কর্মীদের।

তিনি ফাস্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের বুথে নিরাপত্তা কর্মী হিসেবে কাজ করেন মল্লিক আসলাম হোসেন। তিনি বলেন, এটিম বুথে নিরাপত্তার দায়িত্বে যারা থাকি তাদের কয়েকজন ঈদে ছুটি কাটাতে পারে।বেশিরভাগকে দায়িত্ব পালন করতে হয়। আমি ঈদে বাড়িতে যেতে পারিনি। তাই, ছেলেদের জামা কিনে দিয়েছি। জেলা শহরে থাকার পরেও পরিবারের সঙ্গে ঈদ করতে পারেনি। কি আর করার বলেন, টাকার মেশিন পাহারা দিয়েই সময় কেটে যায় দিনগুলো।

মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের বুথে দায়িত্বরত মো. রফিকুল ইসালম বলেন, বুথে আমরা তিনজন কাজ করি। যেকোনো একজন ঈদে বাড়ি যাওয়ার সুযোগ ছিল। সেখান থেকে একজন চলে যাওয়ায় আমার যাওয়া হয়নি। ঈদের পরে যাব। তবে বাড়িতে বাবা-মায়ের জন্য টাকা পাঠিয়ে দিয়েছি। যেতে পারলে ভালো লাগতো। এক সঙ্গে  ঈদ উদযাপন করতে পারতাম।

ডাচ বাংলা ব্যাংকের এটিএম বুথের নিরাপত্তাকর্মী তানভির হাসান বলেন, পরিবারের জন্য টাকা আয় করা হয়, অথচ পরিবারের সঙ্গে ঈদ পালন করা হয় না। মাঝে মাঝে ইচ্ছে হয় পরিবারের সঙ্গে ঈদ করার। কিন্তু কর্মক্ষেত্রের কারণে যেতে পারি না। এই পেশায় আগে কাজ, তারপর উদযাপন।

ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের এক কর্মকর্তা বলেন, জি ফোর এস, এলিট ফোর্সসহ বিভিন্ন সিকিউরিটি কোম্পানির কাছ থেকে ব্যাংক  সিকিউরিটির সার্ভিস নিয়ে থাকে। তাদের ছুটি ব্যাংকের হাতে থাকে না। তাদের ছুটির সঙ্গে আমাদের কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই। ব্যাংক গ্রাহকদের  একারনে তাদের ছুটি দেওয়া হয় না।

 

  • শেয়ার করুন