১৭ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার,রাত ৪:৫০

বাগেরহাটে ঘুষ-সুপারিশ ছাড়া মেধা-যোগ্যতায় পুলিশে চাকরী পেলেন ৩৭ তরুণ-তরুনী

প্রকাশিত: এপ্রিল ৮, ২০২৪

  • শেয়ার করুন

আমিনুল ইসলাম, বাগেরহাট: বাগেরহাটে ঘুষ, সুপারিশ, হয়রানি ছাড়া পুলিশ কনস্টেবল পদে চাকরি পেয়েছেন ৩৭ তরুণ-তরুনী।সন্তানদের এই সাফল্যে আবেগে আপ্লুত চাকরী পাওয়া নতুন পুলিশ সদস্যদের অভিভাবকরা। টাকা-পয়সা ছাড়া যোগ্যতার ভিত্তিতে চাকুরী হওয়ায় সকলকে ধন্যবাদ জানান চাকুরী প্রাপ্তরা।
নিয়োগ প্রদানের নানা প্রক্রিয়া ও ধাপ সম্পন্ন করার পরে  বাগেরহাট জেলা পুলিশ লাইন্সের ড্রিল শেডে পুলিশ কনস্টেবল পদে চাকুরীপ্রাপ্তদের নাম ঘোষনা করেন নিয়োগ কমিটির সভাপতি ও পুলিশ সুপার আবুল হাসনাত খান। নিয়োগপ্রাপ্তদের কাতারে নিজেদের নাম শুনে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন ভবিষ্যত পুলিশ কনস্টেবল ও তাদের অভিভাবকরা। এরপরেই নিয়োগপ্রাপ্তদের ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়।
নিয়োগপ্রাপ্তদের বেশিরভাগ হতদরিদ্র ও মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান হওয়ায় ঘুরে দাঁড়ানোর নতুন স্বপ্ন তাদের চোখে-মুখে। নিজ যোগ্যতায় চাকরী হওয়ায় দেশ সেবায় এগিয়ে যাওয়ার প্রত্যাশা তাদের। অনলাইনে আবেদনের মাধ্যমে মাত্র ১২০টাকায় চাকরী পাওয়ায় প্রধানমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্টদের ধন্যবাদ জানান অভিভাবকরা।
শামীম হাসান নামের এক ব্যক্তি বলেন, আমার মেয়ের চাকুরী হয়েছে। কোন প্রকার ঘুষ-সুপারিশ কোন কিছুই লাগেনি। আমরা খুব খুশি হয়েছি।
বাগেরহাট শহরের মুমতাজিন হোসেন শেখ নামের এক তরুণ বলেন, অনলাইনে আবেদন করেছি। এরপরে মাঠে এসেছি, শারীরিক, লিখিত, মৌখিক পরীক্ষা দিয়েছি। এর মধ্যে কারও সাথে কোন যোগাযোগ করিনি। আমার কাছে এই চাকুরীটা এখনও স্বপ্নের মত লাগছে।


মোরেলগঞ্জ উপজেলা জিউধরা ইউনিয়নের জোতি বাছার বলেন, এভাবে চাকুরী হবে বুঝতে পারিনি। আমার পরিবারের কোন সক্ষমতা নেই, যে চাকুরীর জণ্য টাকা দেবে। তার উপরে এমন কেউ পরিচিতও নেই যে আমার জন্য সুপারিশ করতে পারে। সাহস নিয়ে আবেদন করেছিলাম। চাকুরী হয়েছে। এখন দেশের সেবা করতে চাই।
বাগেরহাটের পুলিশ সুপার আবুল হাসানাত খান বলেন, নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার পর থেকে গোয়েন্দা পুলিশসহ জেলা পুলিশের সকল সদস্য সতর্ক ছিল। কোন প্রকার টাকা পয়সার লেনদেন বা অনিয়ম রোধে সবাই এক সাথে কাজ করেছি। সব মিলিয়ে এই নিয়োগ প্রক্রিয়া খুবই স্বচ্ছতার সাথে মেধা ও যোগ্যথার ভিত্তিতে হয়েছে। এখানে কোন প্রকার অবৈধ লেনদেন বা স্বজনপ্রীতি হয়নি। ভবিষ্যতেও এভাবে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার আশ্বাস দেন এই কর্মকর্তা।
এবার অনলাইনে আবেদন ও যাচাই বাছাই শেষে ১ হাজার ৬৬৬ জনের মধ্যে শারীরিক, লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার মধ্যে ৩৭ জন নিয়োগ পেয়েছেন। এর মধ্যে ৩০জন ছেলে ও ৭জন মেয়ে রয়েছে।

  • শেয়ার করুন