২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার,সকাল ৬:৪৩

বাগেরহাট আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে দেশের ৩১তম  স্মার্ট কর্ণারের উদ্ধোধন

প্রকাশিত: জুলাই ২৯, ২০২৩

  • শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক. আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাচনী পরিচালনা কমিটির প্রধান সমন্বয়কারী সাবেক সচিব কবির বিন আনোয়ার বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার ডাক দিয়েছিলেন। ২০০৮ সালের নির্বাচনের প্রাক্কালে তিনি দিনবদলের সনদ ঘোষণা করেছিলেন তাতে বলা ছিল ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে একটি মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করব। সেই কাজটি করতে গিয়ে ডিজিটাল আইটি’র যে সুযোগ সুবিধা সেগুলো কাজে লাগাবো। দেশটিকে ডিজিটাল বাংলাদেশে পরিণত করব। প্রধানমন্ত্রীর সুদূর প্রসারী নের্তৃত্বের কারনে আমরা সেটি ইতিমধ্যে অর্জন করতে সক্ষম হয়েছি। এখন তিনি জাতির সামনে একটি লক্ষ্য নির্দেশ করেছেন আর সেটি হবে ডিজিটাল বাংলাদেশ থেকে স্মার্ট বাংলাদেশ। স্মার্ট বাংলাদেশেকে ২০৪১ সালে তিনি যে উন্নত বাংলাদেশের কথা বলছেন সেটি হলো উন্নত, আতœমর্যাদাশীল ও স্বনির্ভর কারো কাছে মূখাপেক্ষী নয়, মাথা উঁচু করে দাঁড়ানো। তার যে স্বপ্ন তার বাস্তবায়নের প্রথম ধাপকে আমরা বলছি স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মানের।

শনিবার বিকেল শহরের রেলরোডে আওয়ামীলীগের দলীয় কার্যালয়ে ফিতে কেটে এই স্মার্ট কর্ণারের উদ্ধোধন শেষে তিনি সাংবাদিকদের একথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, এবারের আসন্ন নির্বাচনে যে ইশতেহার জাতির সামনে প্রধানমন্ত্রী রেখেছেন তাতে এই স্মার্ট বাংলাদেশের কথা তুলে ধরা হয়েছে। এটি যদি মোটাদাগে বলি তাহলো স্মার্ট গর্ভমেন্ট, স্মার্ট ইকোনমি, স্মার্ট সিটিজেন এবং স্মার্ট সোসাইটি। এইসবগুলোই গড়বে  ডেমোক্রেসিতে। এই ডেমোক্রেসিতে সরকার হয় দলীয় সরকার। দলের থেকেই সরকারে যায়। দল স্মার্ট হলেই সরকার স্মার্ট হয়। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ তার জন্ম থেকে শুরু করে গনমুক্তির আন্দোলনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে। বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী যে স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মানের ডাক দিয়েছেন সেখানেও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ অগ্রপথিকের ভূমিকা পালন করেছে। সেকারনে সারাদেশের প্রত্যেকটি দলীয় কার্যালয়ে আরো ডিজিটালাইজড স্মার্ট করে গড়ে তোলার লক্ষ্যে কাজ শুরু করেছি। তারই ধারাবাহিকতায় আজ বাগেরহাট জেলায় উদ্ধোধন করা হল। এই নিয়ে দেশের ৩১টি জেলায় স্মার্ট কর্ণার উদ্ধোধন হয়েছে। দেশের সব জেলাতেই এই কর্ণার চালু করা হবে। এই কর্ণারে স্মার্ট, দক্ষকর্মী দল তৈরি করা হবে। এইখানে প্রশিক্ষণ নিয়ে দক্ষ হয়ে তারা দেশের বিরুদ্ধে যারা নানা অপপ্রচার চালাবে তাদের এরাই রুখবে।

রোড টু স্মার্ট বাংলাদেশ এই স্মার্ট কর্ণার বাস্তবায়ন করবে।

এসময়ে বাগেরহাট জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ কামরুজ্জামান টুকু, সাধারণ সম্পাদক আইনজীবী ভূঁইয়া হেমায়েত উদ্দিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক খান হাবিবুর রহমান, জেলা যুবলীগের সভাপতি সরদার নাসির উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মীর জায়েসী আশরাফী জেমস, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সরদার নাহিয়ান আল সুলতান ওশানসহ বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

পরে তিনি বাগেরহাট শহরের জেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে জেলা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীদের সাথে  এক মতবিনিময় সভায় যোগ দেন।

  • শেয়ার করুন