২৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার,ভোর ৫:৩৯

রামপালে হতদরিদ্র ৩৫৪ চক্ষু রোগীকে বিনামূল্যে অপারেশনসহ লেন্স সংযোজন সম্পন্ন

প্রকাশিত: জুন ১৩, ২০২৩

  • শেয়ার করুন
নিজস্ব প্রতিবেদক, বাগেরহাট
অন্ধত্ব প্রতিরোধ করুণ। এই স্লোগানকে সামনে রেখে গত ১৯ মে রামপালের বড়দিয়া হাজি আরিফ মাদরাসায় ৪৫৪ জন রোগীকে অপারেশনের জন্য বাছাই করা হয়। এর মধ্যে ৩৫৪ জন রোগীর অপারেশনসহ লেন্স সংযোজন করা হয়েছে। নেত্রনালী ও মাংশ বৃদ্ধি ৪৯ রোগীকে আগামী ১৩ জুন খুলনার দিশা চক্ষু হাসপাতালে অপারেশন করা হবে বলে জানানো হয়েছে। অপর ছানিপড়া রোগীদের উচ্চ রক্তচাপ ও ডায়াবেটিস থাকার কারণে অপারেশনে বিলম্ব হচ্ছে। বাগেরহাটের রামপাল, মোংলা, ফকিরহাট, বাগেরহাট সদর, মোড়েলগন্জ, শরণখোলা ও দাকোপসহ বিভিন্ন এলাকার সুবিধা বঞ্চিত মানুষ এ চক্ষু চিকিৎসা সেবা নিয়েছেন।
জানাগেছে, ঢাকা মেগা সিটি লায়ন্স ক্লাবের উদ্যোগে ও লায়ন ডক্টর শেখ ফরিদুল ইসলামের আর্থিক সহযোগীতায় গত ২০০৯ সাল থেকে ২০২৩ সাল পর্যন্ত সুবিধা বঞ্চিত ও অসহায় মানুষদের জন্য এ চক্ষু শিবিরের কার্যক্রম পরিচারিত হয়ে আসছে। ওই সময় থেকে প্রায় ৬০ হাজার চোখের রোগীকে প্রাথমিক চিকিৎসা ও ঔষধ প্রদান করা হয়েছে। এ সময়ে প্রায় সাড়ে ৫ হাজার রোগীর চোখের ছানি, নেত্রনালী ও মাংশবৃদ্ধি রোগীকে অপারেশনসহ লেন্স সংযোজন করা হয়েছে। উল্লেখ্য, রামপাল ও মোংলার বিভিন্ন এলাকায় চক্ষু ক্যাম্প করে রোগীদের সেবা প্রদান করা হয়।
সেবাপ্রাপ্ত শিশুরা চোখের আলো ফিরে পেয়ে তারা লেখাপড়া করতে পারছে। কর্মক্ষম রোগীরা তাদের সংসারের আয় রোজগার করে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারছেন এবং বৃদ্ধরা চোখের আলো ফিরে পেয়ে সাভাবিকভাবে চলাফেরা করতে পারছেন।
হতদরিদ্র ও সুবিধা বঞ্চিতদের এমন চিকিৎসার মাধ্যমে চোখের আলো ফেরানো একটি ক্লাবের পক্ষে অত্যান্ত কঠিন কাজ। তাই সমাজের বিত্তশালী মানুষদের এগিয়ে আসতে হবে। ঢাকা মেগা সিটি লায়ন্স ক্লাবের সভাপতি লায়ন ডক্টর শেখ ফরিদুল ইসলাম এ আহবান জানান। তিনি আরও বলেন বাগেরহাটের রামপাল ও মোংলার বিত্তশালীগণ এই মহতী কাজে এগিয়ে এলে আমরা ৯৮ ভাগ অন্ধত্ব প্রতিরোধ করতে পারব।#
  • শেয়ার করুন