২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার,সকাল ৭:৫৭

সার্বজনীন পেনশন স্কিমে খুশি বাগেরহাটবাসী

প্রকাশিত: আগস্ট ২০, ২০২৩

  • শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক. টেকসই ও সুসংগঠিত নিরাপত্তা বলয় প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে বাগেরহাটে সার্বজনীন পেনশন স্কিম চালু করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৭ আগস্ট) সকালে গণভবন থেকে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এসময়, বাগেরহাট জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষ থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে পেনশন স্কিমে নিবন্ধিত সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রিজিয়া পারভীণ প্রধানমন্ত্রীর সাথে কথা বলেন।

এসময়, জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে খুলনা বিভাগীয় কমিশনার মোঃ হেলাল মাহমুদ শরীফ, বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মোহাঃ খালিদ হোসেন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা কামরুজ্জামান টুকু, পুলিশ সুপার কেএম আরিফুল হকনহ বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

এর মাধ্যমে সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারী ব্যতিত ১৮ বছর থেকে ৫০ বছরের বেশি বয়সী সকল বাংলাদেশি নাগরিকদের জন্য ৪টি স্কিমে পেনশন ব্যবস্থা চালু হল। বিদেশী কর্মরত বা অবস্থানকারী যে কোনো বাংলাদেশি নাগরিকদের জন্য প্রবাস স্কিম, বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত কোনো কর্মচারী বা ওই প্রতিষ্ঠানের মালিকদের জন্য প্রগতি স্কিম, অনানুষ্ঠানিক খাতে কর্মরত বা স্বকর্মে নিয়োজিত ব্যক্তিদের জন্য সুরক্ষা স্কিম এবং দারিদ্র্য সীমার নিচে বসবাসকারী আয়ের ব্যক্তিদের জন্য সমতা স্কিম। সার্বজনীন পেনশনের এমন উদ্যেগকে স্বাগত জানিয়েছেন সব শ্রেণি পেশার মানুষ।

বাগেরহাট থেকে পেনশন স্কিমে নিবন্ধিত চিংড়ি ঘেরের শ্রমিক শেখ তানজিম বলেন, বৃদ্ধ বয়সে যখন কাজ করতে পারব না, তখন কি করব কিভাবে চলবে, এই নিয়ে বেশ চিন্তায় ছিলাম। সরকারি পেনশনের বিষয়টি শুনে মাসিক ১ হাজার টাকা জমা দিয়ে সুরক্ষা স্কিমে নিবন্ধণ করেছি। স্ত্রী-সন্তানও খুশি হয়েছে। এখন আশার আলো দেখছি, শেষ বয়সে সরকারিভাবে পেনশন পাব এটা ভেবে ভাল লাগছে।

মাসিক ২ হাজার টাকা জমা দিয়ে প্রগতি স্কিমে নিবন্ধন করেছেন এনজিও কর্মী রিজিয়া পারভীন। তিনি বলেন, বেসরকারি চাকুরীজীবীরা প্রচন্ড কষ্ট করেন। তবে তাদের কোন পেনশনের ব্যবস্থা নেই। তবে দেশরত্ন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সকল নাগরিকের জন্য যে পেনশনের ব্যবস্থা করেছে এজন্য আমরা কৃতজ্ঞ। আমি নিজে পেনশন স্কিমের জন্য টাকা জমা দিয়েছি। পরিচিতদেরও পেনশন স্কিমের আওতাভুক্ত আসার অনুরোধ করব।

বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মোহাঃ খালিদ হোসেন বলেন, সারাদেশের মধ্যে ৮টি জেলায় পেনশন স্কিম চালু হয়েছে। এর মধ্যে বাগেরহাট জেলাকে নির্বাচিত করার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে কৃতজ্ঞতা জানাই। এই পেনশন স্কিমের মাধ্যমে সাধারণ মানুষের ভাগ্যোন্নয়ন ঘটবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

  • শেয়ার করুন